g বাংলাদেশী গৃহকর্মী নির্যাতনঃ ‘অসুস্থ’ হংকংয়ের নাগরিকের ‘স্থগিত’ কারাদণ্ড | AmaderBrahmanbaria.Com – আমাদের ব্রাহ্মণবাড়িয়া

শনিবার, ৯ই সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং ২৫শে ভাদ্র, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

বাংলাদেশী গৃহকর্মী নির্যাতনঃ ‘অসুস্থ’ হংকংয়ের নাগরিকের ‘স্থগিত’ কারাদণ্ড

AmaderBrahmanbaria.COM
সেপ্টেম্বর ২৪, ২০১৪
news-image

---

বাংলাদেশী গৃহপরিচারিকার গায়ে গরম পানি নিক্ষেপের অভিযোগে হংকংয়ের এক সাবেক সরকারি চাকুরীজীবী নারীকে ছয় মাসের কারাদণ্ড দিয়েছে দেশটির একটি আদালত। তবে একই রায়ে অভিযুক্ত ভদ্রমহিলার শারীরিক অসুস্থতার বিষয়টি আমলে নিয়ে ‘ঘটনার পুনরাবৃত্তি না করার শর্তে’ এ সাজা আঠারো মাসের জন্য স্থগিত করে দেয়া হয়েছে।

au-raksona

অভিযুক্ত গৃহকর্ত্রী অ ওয়াই চুন (বাঁয়ে) এবং অভিযোগকারী গৃহকর্মী রোকসানা (ডানে)। ছবিঃ সাউথ চায়না মর্নিং পোস্ট।

খবরে প্রকাশ, রোকসানা বেগম (২৭) নামের ওই বাংলাদেশী গৃহকর্মী সুং কানের বহিনিয়া গার্ডেনে অভিযুক্ত সাবেক সরকারি কর্মকর্তা অ ওয়াই চুনের (৬২) বাড়িতে কাজ করতেন। গত বছরের ৩০ সেপ্টেম্বর চুন রোকসানাকে এক কাপ গরম পানি নিয়ে আসতে বললে রোকসানা পানি এনে গৃহকর্ত্রীর হাতে দেন। এ সময় চুন ‘পানি যথেষ্ট গরম হয় নি’ বলে অসন্তোষ প্রকাশ করেন। এ নিয়ে বাকবিতণ্ডার এক পর্যায়ে চুন ওই কাপের পানি রোকসানাকে উদ্দেশ্য করে ছুঁড়ে মারেন। এর ফলে তাঁর বুকের খানিকটা অংশ পুড়ে যায়।

আদালতে চুনের আইনজীবী জুদি মা দাবী করেন, ঘটনাটি রোকসানার সাজানো ছিল। তাঁর ভাষ্যমতে, রোকসানা সম্প্রতি দেশে ফিরে যেতে চেয়েছিল এবং এ সুযোগে কিছু ক্ষতিপূরণ আদায় করে নেবার মানসে তিনি এমনটা করেছেন। দাবীর স্বপক্ষে জুদি যুক্তি দেখান যে, চুন হুইলচেয়ারে চলাফেরা করেন। তাঁর পা, পিঠ ও ঘাড়ে তীব্র ব্যাথা রয়েছে। এমন শারীরিক অবস্থায় তাঁর পক্ষে এ ধরনের ঘটনা ঘটানো সম্ভব নয়। আর তিনি একান্তই এমন কিছু করতে উদ্যোগী হয়ে থাকলেও রোকসানা চাইলে তা প্রতিহত করতে পারতেন।

আদালত জুদির এসব যুক্তি বিভিন্ন পাল্টা যুক্তিতে খারিজ করে দেন। তবে রায়ে এ-ও বলা হয় যে, বাদীপক্ষ চুনের বিরুদ্ধে ‘ইচ্ছাকৃতভাবে’ ‘গুরুতর শারীরিক ক্ষতি’ করার অভিযোগ প্রমাণে ব্যর্থ হয়েছে। ফলশ্রুতিতে চুনকে ‘লঘুতর শারীরিক ক্ষতি’র দায়ে অভিযুক্ত করে ছয় মাসের কারাদণ্ড প্রদান করা হয়। বিচারক তাঁর রায়ে বলেন, “এমন শারীরিক অবস্থা নিয়ে এভাবে আদালতে হাজিরা দেয়াতেই তাঁর যথেষ্ট শাস্তি হয়ে গেছে।” চুনকে তিরস্কার করে বিচারক বলেন, “আপনি কেবল হংকংয়ের চাকুরিদাতাদের প্রতি বিদেশী কর্মীদের আস্থাই নষ্ট করেন নি, তাঁদের সুনামও ক্ষুণ্ণ করেছেন।”

রায় স্থগিত করার ক্ষেত্রে আদালত চুনের শারীরিক অসুস্থতার পাশাপাশি তাঁর ‘অতীত’ বিষয়ে উল্লেখযোগ্যসংখ্যক ‘ইতিবাচক’ সাফাই সাক্ষ্যও আমলে নেন।

এ জাতীয় আরও খবর