g চমেকের প্রভাষক তারেক শামসকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা , নিখোঁজদের খোঁজে বান্দরবানের রুমায় চলছে সেনা অভিযান | AmaderBrahmanbaria.Com – আমাদের ব্রাহ্মণবাড়িয়া

শুক্রবার, ২১শে জুলাই, ২০১৭ ইং ৬ই শ্রাবণ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

চমেকের প্রভাষক তারেক শামসকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা , নিখোঁজদের খোঁজে বান্দরবানের রুমায় চলছে সেনা অভিযান

AmaderBrahmanbaria.COM
অক্টোবর ১৯, ২০১৫
news-image

---

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের প্রভাষক ডা.তারেক শামসকে (৩৬) নিজ বাসায় কুপিয়ে গুরুতর আহত করেছে অজ্ঞাতপরিচয় দুর্বৃত্তরা। সোমবার ভোরে নগরীর হালিশহর থানার রঙ্গিপাড়া এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। আহত তারেক শামস খ্যাতিমান চিকিৎসক শামসুল আলম এবং আগ্রাবাদ মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ লেখিকা আনোয়ারা আলমের ছেলে। নগরীর বেসরকারি ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার সিএসসিআর-এ তার ব্যক্তিগত চেম্বার রয়েছে।

আহতের পরিবারের বরাত দিয়ে নগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ কমিশনার (পশ্চিম) আরেফিন জুয়েল জানান, ডা.তারেক শামস নিজ বাসার নিচতলায় শয়নকক্ষে ঘুমিয়ে ছিলেন। বাসায় স্ত্রী ছিলেন না। তার বাবা-মা দোতলায় ছিলেন। ভোর ৫টার দিকে শয়নকক্ষের দরজায় টোকা শুনে তারেক ঘুম থেকে উঠেন।  দরজা খুলে বেরিয়ে আসার পর তাকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে চলে যায় দুর্বৃত্তরা। এ সময় এলাকার লোকজন এসে তাকে দ্রুত চমেক হাসপাতালে নিয়ে যায়। বর্তমানে তার অবস্থা আশঙ্কামুক্ত বলে চিকিৎসকদের বরাত দিয়ে জানিয়েছেন তিনি। তিনি আরো জানান, তবে কি কারণে এই ঘটনা ঘটেছে তা জানা যায়নি। বাসায় ডাকাতির কোন ঘটনা ঘটেনি। কোন মালামাল খোয়া যায়নি। পেশাগত কিংবা পারিবারিক কোন বিরোধ থেকে এ ঘটনা ঘটতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

 

 

বিবিসি বাংলার প্রতিবেদন
নিখোঁজদের খোঁজে বান্দরবানের রুমায় চলছে সেনা অভিযান 

বাংলাদেশের পার্বত্য জেলা রাঙামাটিতে সম্প্রতি নিখোঁজ হওয়া তিনজন বাংলাদেশী পর্যটক ও তাদের গাইডকে উদ্ধারের জন্য সেনাবাহিনীর অভিযান চলছে আজ সকাল থেকে। গত ১৪ই অক্টোবর থেকে পর্যটক ও তাদের গাইডদের খোঁজে সেনা অভিযান শুরু হয়। বান্দরবানের কাছে একটি প্রত্যন্ত এলাকায় ওই অভিযান চালানোর সময় গতকাল গুলিবিদ্ধ হয়ে স্থানীয় গ্রাম প্রতিরক্ষা দলের একজন সদস্য নিহত হন, সেনাবাহিনীর দুজন সদস্যও গুলিবিদ্ধ হন।bgb

বান্দরবানের সাংবাদিকরা জানাচ্ছেন, মিয়ানমারের একটি বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠনের সদস্যরা এই অপহরণের সাথে জড়িত থাকতে পারে বলে স্থানীয় লোকেরা ধারণা করছেন। এ ক্ষেত্রে আরাকান লিবারেশন পার্টির নামই শোনা যাচ্ছে বেশি। বান্দরবান থেকে সাংবাদিক মনিরুল ইসলাম জানাচ্ছেন, বাংলাদেশ ভারত মিয়ানমার সীমান্তের ওই জায়গাটি অরক্ষিত এবং সেখানে বিভিন্ন বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠনের কার্যক্রম রয়েছে। তারা ইদানীং বেশ তৎপর রয়েছে এবং এরই ভিত্তিতে অপহরণের ঘটনা ঘটেছে বলে স্থানীয়রা জানাচ্ছেন। ইসলাম জানাচ্ছেন, নিখোঁজদের খুব দ্রুতই পাওয়া যাবে বলে আশা করা হচ্ছে।

 

 

 

এ জাতীয় আরও খবর